আজ : বুধবার, ১২ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘জিয়া-খালেদার ভাঙ্গন দাম্পত্যে জোড়া লাগিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা’-প্রতিমন্ত্রী


প্রতিবেদক
জনতার মেইল.ডটকম

প্রকাশিত: ৩:৫৬ অপরাহ্ণ ,৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | আপডেট: ১:০১ পূর্বাহ্ণ ,৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
‘জিয়া-খালেদার ভাঙ্গন দাম্পত্যে জোড়া লাগিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা’-প্রতিমন্ত্রী

জনতার মেইল ডেস্ক।। মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন- পিতা হারানো সব নারীর পিতা হলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ভাঙ্গন দাম্পত্যে জোড়া লাগিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব।

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ও বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয় সিলেটের আয়োজনে ৬ ফেব্রুয়ারি-২০২০ বৃহস্পতিবার সকাল ১০.টায় সিলেট নগরীর রিকাবীবাজারস্থ কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত বিভাগীয় পর্যায়ে নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেন- ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালের সংবিধানে নারীদের সম অধিকারের নিশ্চয়তা প্রদান করেছেন। মুক্তিযুদ্ধে নির্যাতিত নারীদের পুনর্বাসন করার জন্য নারী পুনর্বাসন বোর্ড গঠন করেছিলেন। নির্যাতিত নারীদের চিকিৎসার জন্য ভারত, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, জাপানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে চিকিৎসক এনে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছিলেন তিনি।’‘নির্যাতিত নারীদের বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা সামাজিক ও পারিবারিকভাবে পুনর্বাসন করার ব্যবস্থা করেছিলেন। তাঁরা নির্যাতিত নারীদের বিয়ের ব্যবস্থা করেছেন। যেসব নারীর বিয়ে ভেঙে যেত, তাদের দাম্পত্য জীবনের জোড়া লাগিয়েছিলেন। যেমন জোড়া লাগিয়েছিলেন জিয়াউর রহমান ও খালেদা জিয়ার দাম্পত্যের। যার ফলে খালেদা জিয়া পরপর তিনবার প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন।’

তোমরাই বাংলাদেশের বাতিঘর’ প্রতিপাদ্যে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য তৃণমূলের নারীদের সম্মাননা জানাতে আজ সকাল ১০টায় সিলেট কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানেস ভাপতিত্ব করেন সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ মশিউর রহমান. এনডিসি।

সিলেট জেলা কালচারাল অফিসের অসিত বরণ দাস গুপ্ত এবং নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের শিশু সুরক্ষা কর্মকর্তা প্রিয়াংকা দাস রায়ের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি শামীমা আক্তার খানম ও সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন, সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা জেবুন্নেছা হক, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার এবং মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক  (গ্রেড-১) পারভীন আকতার প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে, পাঁচ ক্যাটাগরিতে সিলেট বিভাগের ৪ জেলায় ৫ জন করে জেলা পর্যায়ে ২০ জন ও বিভাগীয় পর্যায়ে ৫ জন- মোট ২৫ জন নির্বাচিত নারীকে প্রদান করা হয়েছে শ্রেষ্ঠ জয়িতার সংবর্ধনা ও পুরস্কার।

Comments

comments