আজ : রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ী শহররক্ষা বাঁধ পরিদর্শন করলেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব


প্রতিবেদক
জনতার মেইল.ডটকম

প্রকাশিত: ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ ,১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ | আপডেট: ১:২৪ অপরাহ্ণ ,১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
রাজবাড়ী শহররক্ষা বাঁধ পরিদর্শন করলেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব

উজ্জল চক্রবর্ত্তী-স্টাফ রিপোর্টার।। পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ ইউসুফ রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্পের বাস্তবায়ন কাজ পরিদর্শন করেছেন ১৬ ফেব্রুয়ারি-১৯ শনিবার দিন। এসময় রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলীসহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
প্রকল্পের আওতায় সিসি ব্লক তৈরি, জিও ব্যাগ ডাম্পিং, ড্রেজিং ইত্যাদি অর্থাৎ মূল কাজ ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। বর্তমানে ২৫০ কেজি ওজনের বালু ভতি জিও ব্যাগ ডাম্পিংপূর্বক রাজবাড়ী শহর রক্ষা বাধঁ রক্ষার কার্যক্রম চলছে। ড্রেজিং এর জন্য ২ টি ড্রেজার এবং বার্জ থেকে জিও ব্যাগ ডাম্পিং এর উদ্দেশ্যে ৩ টি বার্জ সাইটে অবস্থান করছে। এখন পর্যন্ত ৩,৩৪,১৫০ টি জিও ব্যাগ ডাম্পিং ও ২৩,৫১১ টি সিসি ব্লক তৈরি করা হয়েছে। কাজের অগ্রগতি ১৫ %।

উল্লেখ করা যেতে পারে, প্রমত্তা পদ্মা নদীর ডান তীরে অবস্থিত রাজবাড়ী শহর রক্ষায় ইতিপূর্বে ২০০৯-১০ সালে ‘‘রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্প (ফেইজ-১)’’ এর মাধ্যমে ২.৪ কি.মি. নদীর তীর সংরক্ষণ কাজ স্থায়ীভাবে বাস্তবায়ন করা হয়েছিল। ফলে বন্যা নিয়ত্রণ বাঁধসহ রাজবাড়ী শহর ভাঙনের কবল থেকে রক্ষা পায়। কিন্তু পরবর্তীতে বাস্তবায়িত প্রকল্পের উজান ও ভাটিতে নদী ভাঙন অব্যাহত থাকায় রাজবাড়ী সদর উপজেলার লালগোলা ও উড়াকান্দা নামক স্থান ভাঙনের ঝুঁকিতে পড়ে।

তদপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড ‘‘রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্প (ফেইজ-২)’’ ৩৪১.৯৮৬৬ কোটি টাকার একটি ডিপিপি প্রণয়ন করলে গত ০১/০৮/২০১৭ খ্রিস্টাব্দ তারিখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় অনুমোদিত হয়। উক্ত প্রকল্পের মাধ্যমে ৩৪১.৯৮৬৬ কোটি টাকা ব্যয়ে রাজবাড়ী শহর রক্ষা বাঁধের ৪.৫ কি.মি. স্থায়ীভাবে সংরক্ষণ এবং প্রয়োজনমতে নদী শাসনের প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। প্রকল্পটির ডিপিপিতে উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে কাজ সম্পন্ন করার কথা উল্লেখ থাকায় এটি স্বল্প সময়ে এবং সরকারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে (DPM) সম্পন্ন করার লক্ষ্যে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় অনুমোদিত হয়। অতঃপর পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় যে, কাজটি বাংলাদের নৌবাহিনীর আওতাধীন খুলনা শিপইয়ার্ড লি. বাস্তবায়ন করবে। সে মোতাবেক খুলনা শিপইয়ার্ড লি. এর ৩২৮,৯৬,৩৬,৯১৮.১৯ (তিন শত আটাশ কোটি ছিয়ানব্বই লক্ষ ছত্রিশ হাজার নয়শত আঠার দশশিক এক নয়) টাকার একটি দর প্রস্তাব গত ১৮/০৪/২০১৮ খ্রিস্টাব্দ তারিখে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি কর্তৃক অনুমোদন লাভ করে এবং ৩১/০৫/২০১৮ খ্রিস্টাব্দ তারিখ Performance Guarantee প্রদান করা হয়। গত ০৭/০৬/২০১৮ খ্রিস্টাব্দ তারিখে Contract Agreement চুক্তিপত্র সম্পাদন করা হয়।
বাংলাদেশ নৌবাহিনী পরিচালিত খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড (খুশিলি) এর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের অনুরোধের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসনের আহ্বানে গত ২০/০৬/২০১৮ খ্রিস্টাব্দ সাবেক  শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আলহাজ কাজী কেরামত আলী, এমপি এবং সংরক্ষিত আসন-৩৮ এর সাবেক মাননীয় সংসদ সদস্য কামরুন নাহার চৌধুরীর উপস্থিতিতে প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকতা এবং প্রকল্প এলাকার জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয় এবং ঐদিন বিকেলে প্রকল্পের মূল কাজের অংশ হিসেবে সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আলহাজ কাজী কেরামত আলী,এমপি মহোদয়ের মাধ্যমে বরাটের উড়াকান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সন্নিকটে ২৫০ কেজি ওজনের বালিভর্তি জিও ব্যাগ নদীতে ডাম্পিংকরণের মাধ্যমে জরুরি প্রতিরক্ষা কাজের শুভ উদ্বোধন করা হয়।

ইতোমধ্যে রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্প (১ম পর্যায়) এর আওতায় বাস্তবায়িত কি.মি. ৫৪.৭০০ হতে কি.মি. ৫৭.২০০ পর্যন্ত=২.৫০০ কি.মি. স্থায়ী তীর সংরক্ষণ কাজ মেরামত ও পুননির্মানের জন্য রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্প (২য় পর্যায়) এর একটি সংশোধিত ডিপিপি বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের ঊর্ধ্বতন দপ্তরে দাখিল করা হয়েছে।

Comments

comments