আজ : রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আজ“জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড”-১৮ প্রদান অনুষ্ঠিত হবে-আসছে জয়


প্রতিবেদক
জনতার মেইল.ডটকম

প্রকাশিত: ২:০৫ পূর্বাহ্ণ ,২৮ অক্টোবর, ২০১৮ | আপডেট: ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ ,২৯ অক্টোবর, ২০১৮
আজ“জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড”-১৮ প্রদান অনুষ্ঠিত হবে-আসছে জয়

নিজস্ব প্রতিনিধি।। “তোমার জয়ে, ‘বাংলার জয়” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে দেশের সম্ভামনাময় তরুণ উদ্যোক্তাদের ‍স্বপ্ন বাস্তবায়নে সহযোগীতা ও উৎসাহ সৃষ্টির মাধ্যমে কাজের গতি বৃাদ্ধির লক্ষ্যে তরুণ সংগঠকদের সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ প্রদান করা হবে জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড-২০১৮।

সি.আর.আই এর সার্বিক সহযেগীতায় ও ইয়াং বাংলার আয়োজনে ২৮শে অক্টোবর-১৮ রবিবার বিকেল ৩.টার দিকে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের ঢাকা সাভারের শেখ হাসিনা জাতীয় যুব উন্নয়ন ইনস্টিটিটিউটের অডিটরিয়ামে এ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে।

এই অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন- সিআরআই ও ইয়াং বাংলা,র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

তবে জানাগেছে, প্রথমে এ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয় ২০১৫ সালে, এরপর ২য়বার প্রদান করা হয় ২০১৭ সালে, তারই ধারাবাহিকতায় এবার ৩য় বারের মতো এই অ্যাওয়ার্ড দেয়া হবে।

চুড়ান্ত ভাবে বরাবরের মতোই বিজয়ীদের হাতে পুরষ্কার/অ্যাওয়ার্ড তুলে দিবেন সজীব ওয়াজেদ জয়।

এ সময় আরো উপস্থিত থাকবেন, ইয়াং বাংলার- সামিরা মেহরাজ, তন্ময়, ইভিলেজের আবিষ্কারক আব্দুর রসিদ আনিকা আহমেদ, র‌্যান্ডি গোমেজ, নাবিল, এসআরডিএল পরিচালক আরিফুর রহমান সহ অন্যান্যরা এবং ২০১৫ ও ১৬ সালের অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত সংগঠনের সদস্যবৃন্দ ও ২০১৮ সালের অ্যাওয়ার্ড পাওয়া সম্ভাব্য সংগঠনের সদস্যবৃন্দ সহ এসআরডিএর এর জেলা কর্ডিনেটরবৃন্দ প্রমূখ

এবার যে সকল ক্ষেত্রে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে তা হলোঃ-

১। জেন্ডারঃ নারী ও পুরুষের সাম্য প্রচার, নারীর ক্ষমতায়ন এবং উন্নয়ন।

২। দক্ষতা উন্নয়নঃ আনুষ্ঠানিক কারিগরি শিক্ষা, স্বল্পমেয়াদী কারিগরি শিক্ষা, তথ্য প্রযুক্তি প্রশিক্ষণ, পেশা পরামর্শ।

৩। অন্তর্ভূক্তিমূলক শিক্ষাঃ শিশু শিক্ষা, বয়স্ক শিক্ষা, শিক্ষা বিষয়ক সচেনতা।

৪। প্রতিবন্ধী মানুষের ক্ষমতায়নঃ

৫। সাংস্কৃতিক আন্দোলনঃ সাংস্কুতিক চর্চা, শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ, পাড়া-মহল্লা পাঠাগার, ঐতিহ্য ও সাংস্কুতিক বিষয়ক সচেতনতা, মুক্তি যুদ্ধের চেতনা।

৬। পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তনঃ পরিবেশগত সচেতনতা, পরিবেশ ও জীব বৈচিত্র্য সংরক্ষণ, পরিবেশ বান্ধব পরর্য়টন।

৭।জনসচেতনতা মূলক উদ্যোগঃ নিরাপত্তা, নিরাপদ সড়ক সচেতনতা, বর্জ্য ব্যাবস্থাপনা ও আবর্জনা মুক্ত পরিবেশ সচেতনতা।

৮। স্পোর্টস এবং ফিটনেসঃ স্পোর্টস ক্লাব, খেলাধুলা, ইনডোর/আউটডোর, শরীর চর্চা, আত্নরক্ষা।

৯। উদভাবন ও উদ্যোক্তাঃ কৃষি ও প্রণিসম্পদ, তথ্যপ্রযুক্তি, নবায়ন যোগ্য জ্বালানি, কুটির শিল্প, অন্যান্য।

১০। অন্যান্য সামাজিক উন্নয়নঃ স্বাস্খ্য/মানসিক স্বাস্থ্য, কাউন্সেলিং সেবা, দারিদ্র্য নিরসন, মাদক বিরোধী সচেতনতা, বাল্য বিবাহ রোধ, ঝুঁকি এবং দূর্যোগ মোকাবেলা, রক্তদান মানষিক সহায়তা, স্থানীয় মানুষ ও জীবিকার উন্নয়ন, অন্যান্য।

ইয়াং বাংলা কি? ইয়াং বাংলার মূল উদ্দ্যেশ্য কি?

জাতি গঠনে তরুনদের অংশগ্রহন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২০১৪ সালে ইয়াং বাংলা ‘তোমার জয়ে বাংলার জয়’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে যাত্রা শুরু করে।

ইয়াং বাংলা বাংলাদেশের তরুনদের অন্যতম বড় প্লাটফর্ম হিসেবে যুবসমাজের উন্নয়নে বিভিন্ন কর্মসূচি ও পরিকল্পনার মধ্যোদিয়ে কাজ করছে।বর্তমানে ২ লক্ষ সদস্য ২২০টি সংগঠন, ২০০টি উদ্যোগ, ১৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবক ও ২৫ হাজারের বেশি ইন্টার্ন নিয়ে দৃঢ়তার সাথে এগিয়ে যাচ্ছে ইয়াং বাংলা।অপরদিকে, ইয়াং বাংলা মূল লক্ষ উদ্দেশ্য হচ্ছে, দেশের যুব সমাজের লক্ষ্য ও আগ্রহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সরকারী ও বেসরকারি নীতি নির্ধারণী প্রক্রিয়ায় তরুণদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধিতে দেশের তরুন সমাজকর্মী ও তাদের সংগঠনগুলো কে একটি প্লাটফর্মে সঙ্গবদ্ধ হতে সাহায্য করছে। ‘ইয়াং বাংলা’র সহযোগীতায় ও লিংকের মাধ্যমে- দেশের প্রত্যান্ত অঞ্চলে কাজ করা তরুন সংগঠনগুলোর ভূমিকা ও অবদান বাংলাদেশের মানুষের কাছে তুলে ধরতে এবং নিজ এলাকায় একটি সূদৃঢ় অবস্থান তৈরী করে দেশের তরুণ প্রজন্মের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে সম্ভাবনাময় একটি সোনার বাংলাদেশ উপহার দিতে পারে।

জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ারর্ডে প্রদানের উদ্দেশ্য কি?

দেশ গঠনে এবং সামাজিক উন্নয়নে তরুণদের অবদান দেশের মানুষের কাছে পৌছে দিতে ২০১৫ সাল থেকে আয়োজিত হচ্ছে জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ দেশের তরুণ সমাজের কাছে তোমার জয় বাংলা কি? এই শ্লোগানের মধ্যোদিয়ে জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড পরিবেশন করছে বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মের স্বপ্ন ও সম্ভাবনাকে। স্বীকৃতি পেলে যুব সমাজ সম্ভাবনার দিকে আরো এগিয়ে যাবে এই ধারণা নিয়েই জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ডের যাত্রা শুরু। বাংলাদেশের বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কাজ করছে যেসব তরুণ ও তাদের সংগঠন তাদেরকে জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয়ে থাকে।

বিভিনন্ন ক্ষেত্রে যুব সমাজের অদম্য প্রয়াসগুলোকে পুরষ্কৃত করার মাধ্যমে তাদেরকে উৎসাহিত করা এবং তাদের সাফ্যলের মধ্যে লুকিয়ে থাকা জয় বাংলার গল্প সকলের সামনে উপস্থাপন করাই জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ারর্ডের মূল লক্ষ্য।

Comments

comments