আজ : শনিবার, ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এতিমদের ভালবাসলে মহান আল্লাহ খুঁশী হন;বলেন- প্রধানমন্ত্রীর স্নেহভাজন কাজী ইরাদত আলী


প্রতিবেদক
জনতার মেইল.ডটকম

প্রকাশিত: ১০:১২ পূর্বাহ্ণ ,৫ জুন, ২০১৮ | আপডেট: ৮:৪৩ অপরাহ্ণ ,৫ জুন, ২০১৮
এতিমদের ভালবাসলে মহান আল্লাহ খুঁশী হন;বলেন- প্রধানমন্ত্রীর স্নেহভাজন কাজী ইরাদত আলী

নিজস্ব প্রতিনিধি।।এতিমদের ভালবেসে সাহায্য সহযোগীতা করলে মহান রাব্বুল আলামিন খুশি হন, আল্লাহর রাসুলও খুশি হন।বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নেত্রী, আমার প্রানপ্রিয় জননেত্রী শেখ হাসিনা এতিম, আবার আমিও এতিম। এতিমের দুঃখ-কষ্ট আমি বুঝি, তাইতো তাদেরকে আমি ভালবাসী।এই এতিমরা আমাদেরই সন্তানের ন্যায়, ওদের পাশে থেকে আদর-ভালোবাস আর স্নেহ দিয়ে দেশের সম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। যাতে তারা মানুষের মতো মানুষ হতে পারে।

৪ঠা জুন-১৮ সোমবার মাগরিববাদ সন্ধ্যা সাড়ে ৭.টার দিকে রাজবাড়ী জেলা সদরের মিজানপুর ইউনিয়নের সিলিমপুর গ্রামে অবস্থিত ‘মোনাক্কা-আলভী বালিকা এতিম খানায়’ কমলমতি শিশুদের মাঝে ঈদের পোশাক বিতরণ করার সময় আবেগজড়িত কন্ঠে এসব কথা বললেন- রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক জননেতা কাজী ইরাদত আলী।
তিনি প্রতি ঈদের ন্যায় এবারেও ২৬জন শিশুর হাতে ঈদের নতুন পোশাক তুলে দিলেন গরীব-দুখি জনবান্ধব কাজী ইরাদত আলী।ঈদের নতুন পোশাক পেয়ে আনন্দে শিশুদের মুখে হাসি ফুটে উঠেছে। এতিম খানার সকল শিশু কাজী ইরাদত আলীকে মামা বলেই ডাকেন।

রাজবাড়ী জেলা শহরের ধুঞ্চি পদ্মা নদী ঘাট পাড়ে কাজী পরিবারের মেয়ে কানাডা প্রবাসী রোমানা খন্দকারের উদ্যোগে মোনাক্কা-আলভী বালিকা এতিম খানাটি ২০১৫ সালের মে মাসে স্থাপন করা হয় ও উদ্বোধন করা হয়।

এই এতিম খানার উদ্বোধনের পর থেকে বিগত ৩বছর যাবত এ এতিমখানাটি কানাডা প্রবাসী রোমানা খন্দকারের অর্থায়নে ও সার্বিক প্রচেষ্টায় কোন সরকারী সাহায্য সহযোগিতা ছাড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন জননেতা কাজী ইরাদত আলী।
এই এতিমখানার সহকারী সুপার ভাইজার ফরিদা পারভিন জানান, ৬বছর থেকে শুরু করে ১৪ বছর পর্যন্ত মোট ২৬জন অসাহায় শিশু আছে। এদের সকলের সব সময় খোজঁ রাখেন, কাজী ইরাদত আলী।

Comments

comments