আজ : রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরগুনার সেই চাঞ্চল্যকর গণধর্ষণ মামলার আসামী পটুয়াখালী র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার


প্রতিবেদক
জনতার মেইল.ডটকম

প্রকাশিত: ৫:৩০ অপরাহ্ণ ,২ মে, ২০২০ | আপডেট: ১১:১৩ অপরাহ্ণ ,২ মে, ২০২০
বরগুনার সেই চাঞ্চল্যকর গণধর্ষণ মামলার আসামী পটুয়াখালী র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার।। ররগুনা তালতলীতে ৭ বছরের কন্যা সন্তানকে গাছের সাথে বেঁধে রেখে মাকে গণধর্ষণ মামলার এজাহার নামীয় অন্যতম পলাতক আসামি মোঃ জহুরুল আকন (২৮) কে গ্রেফতার করেছে পটুয়ালী র‌্যাবের একটি বিশেষ আভিযানিক দল।

র‍্যাব ৮, সিপিসি-১, পটুয়াখালী ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রইছ উদ্দিনের নেতৃত্বে ১ লা মে-২০২০ শুক্রবার সন্ধ্যা ৬.টার দিকে বরগুনা জেলার সদর থানাধীন দক্ষিণ বালিয়াতলি এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাকে গ্রেফতার করে।

আটককৃত আসামী- বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলার তেতুলবাড়িয়া গ্রামের আলমগীর আকনের ছেলে।

বিস্তারিতঃ ঘটনার সংক্ষিপ্ত বিবরনে জানা যায় যে, গত ২৩ এপ্রিল-২০২০ জনৈক গৃহবধূ তার কন্যা সন্তানকে নিয়ে শ্বশুরবাড়ি পিরোজপুর জেলাধীন মঠবাড়িয়া উপজেলার শাপলেজা গ্রাম থেকে পটুয়াখালী কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর গ্রামে খালাবাড়ি রওনা দেয়। শ্বশুর বাড়ি থেকে পাথরঘাটা খেয়া পাড় হয়ে তালতলী শুভসন্ধ্যা ঘাটে পৌছায়। সেখান থেকে ভাড়ায় চলিত মোটরসাইকেলে নিশানবাড়িয়া খেয়াঘাটের উদ্দেশ্যে রওনা করে। মোটরসাইকেল ড্রাইভার অভিযুক্ত জহুরুল আকন তাদেরকে নিয়ে নির্জন জঙ্গলে দিকে যায়। সেখানে নিয়ে এলাকার ৪/৫ জন বখাটে মিলে সন্তানকে গাছের সাথে বেঁধে রেখে মাকে গণধর্ষণ করে। এ সংক্রান্তে ভিকটিম গৃহবধূ নিজেই বাদী হয়ে গত ১লা মে-২০২০ তারিখে তালতলী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে এ ঘটনাটি “বরগুনায় ৭ বছরের কন্যা সন্তানকে গাছের সাথে বেধে মেয়েকে মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে মাকে গনধর্ষণ” শিরোনামে শীর্ষক সংবাদ গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে ঘটনাটি অত্যন্ত চাঞ্চল্যকর সৃস্টি হওয়ায় পটুয়াখালী র‍্যাব ছায়াতদন্ত শুরু করে এবং অভিযুক্তদের গ্রেফতারে গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে।

এরপর, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উক্ত মামলার অন্যতম আসামি ও মোটরসাইকেল চালক জহুরুল আকন কে শুক্রবার সন্ধ্যায় গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। আটককৃত আসামিকে তালতলী থানায় হস্তান্তর করা হয়। অভিযুক্ত অপর আসামিদের গ্রেফতারের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Comments

comments