আজ : রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে গোয়ালন্দে অবৈধ ড্রেজার ধ্বংস


প্রতিবেদক
জনতার মেইল.ডটকম

প্রকাশিত: ৪:৫৮ অপরাহ্ণ ,৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | আপডেট: ১১:০০ অপরাহ্ণ ,৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে গোয়ালন্দে অবৈধ ড্রেজার ধ্বংস

গোয়ালন্দ প্রতিনিধি।। ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ইউনিয়ন ছাহের মন্ডল পাড়ায় মরাপদ্মা নদীতে একটি অবৈধ ড্রেজার মেশিন ধ্বংস করেছে।

ড্রেজার মালিক উজানচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন ফকরিরে ছোট ভাই লাভলু ফকির।সে স্থানীয় সালাম ফকিরের ছেলে।

এ সময় লাভলু ফকিরের স্ত্রী মোছাঃ রুমি আক্তার সরকারী কাজে বাধা প্রদান করতে গেলে তাকে গ্রেফতার করে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে রুমি আক্তারকে সরকারি কাজে বাধা প্রদানের কারনে ২ হাজার টাকা এবং লাভলু ফকিরকে পরিবেশ সংরণ আইনে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

২ ফেব্রুয়ারি-২০২০ রবিবার বিকলে এ অভিযান চালান- গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা আব্দুল্লাজ আল মামুনের (ভূমি)।

জানা যায়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে মরা পদ্মা নদী হতে অবৈধভাবে বালু তুলে ব্যবসা করছিলেন । এতে নদী পাড়ের অনেকের ফসলী জমি, বাগান ও কয়েকটি ভিটেবাড়ি নদীতে বিলীন হয়। রবিবার সকালে ছাহের মন্ডল পাড়ার অর্ধশত বাসিন্দা লাভলু ফকরিরে বিরুদ্দে অভিযোগ জানানোর জন্য গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা আব্দুল্লাজ আল মামুনের (ভূমি) কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। অভিযোগ পেয়ে তৎক্ষনাত ইউএনও সরেজমিন অভিযানে যান। এ সময় তিনি অভিযোগের সত্যতা পেয়ে অবৈধ ড্রেজার ধ্বংসের নির্দেশ দেন।

এ প্রসঙ্গে, ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, নদী হতে বালু উত্তোলন করা অবৈধ। তাছাড়া ওই ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের কারনে নদী পাড়ের লোকজন তিগ্রস্থ হচ্ছিল। অভিযোগ পেয়ে দ্রুত অভিযান চালিয়ে ড্রেজার মেশিনটি ধ্বংস ও অভিযুক্তদের আটক করে আর্থিক দন্ডে দন্ডিত করা হয়। তিনি আরো জানান, সরকারী কাজে বাধা প্রদান করায় লাভলু ফকিরের স্ত্রী মোছাঃ রুমি আক্তারকে ২ হাজার টাকা এবং পরিবেশ সংরণ আইনে ড্রেজার মালিক লাভলু ফকিরকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

Comments

comments