আজ : রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনার কারনে- সাধারণ ছুটি বাড়ল ১১ এপ্রিল পর্যন্ত


প্রতিবেদক
জনতার মেইল.ডটকম

প্রকাশিত: ৪:০৭ অপরাহ্ণ ,৩১ মার্চ, ২০২০ | আপডেট: ১:১২ পূর্বাহ্ণ ,১ এপ্রিল, ২০২০
করোনার কারনে- সাধারণ ছুটি বাড়ল ১১ এপ্রিল পর্যন্ত

জনতার মেইল ডেস্ক।।  প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধে সাধারণ ছুটি ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

এর আগে আজ ৩১ মার্চ-২০২০ মঙ্গলবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ ছুটি বৃদ্ধির ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। এবার আসন্ন পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান না করার কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ছুটি দিয়েছিলাম, হয়তো আমাদের আরো কয়েকদিন বাড়াতে হতে পারে। কারণ অনেকে গ্রামে চলে গেছেন সেখানে কোনো রকম যেন এ রোগের প্রার্দুভাব দেখা না দেয় সে সময়টা হিসেব করে- আমরা ১০/১২ দিনের ছুটি দিয়েছিলাম। এটা ১৪ দিন করতে হবে। ৯ তারিখ পর্যন্ত হতে পারে। ছুটিটা সীমিত আকারে আমাদের একটু বাড়াতে হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, করোনা প্রতিরোধে মানুষের করণীয় বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। আপনারা এসব নির্দেশনা মেনে চলুন। কেননা নিজেদের সুরক্ষা নিজেদেরই করতে হবে।

এ সময় সবাইকে ঘরে অবস্থানের পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, ৩১/২০২০ মঙ্গলবার এক অনলাইন ব্রিফিংয়ে দেশে নভেল করোনাভাইরাস মহামারীর সর্বশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরেন সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

আইইডিসিআরের পরিচালক বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় মোট ১৪০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২ জনের সংক্রমণের বিষয়ে তারা নিশ্চিত হয়েছেন। এ নিয়ে তারা মোট ১৬০২ জনের নমুনা পরীক্ষা করলেন।

সেব্রিনা জানান, বাংলাদেশে আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও ৬ জন। আক্রান্তদের মধ্যে এ নিয়ে মোট ২৫ জন সংক্রমণমুক্ত হলেন। বাংলাদেশে কোভিড-১৯ এ মৃতের মোট সংখ্যা আগের মতই ৫ জনে রয়েছে।

আইইডিসিআরের পরিচালক বলেন, নতুন আক্রান্ত ২ জনই পুরুষ। তাদের একজনের বয়স ৫৭ বছর। তিনি সৌদি থেকে এসেছেন। তার ডায়াবেটিস আছে। অন্যজনের বয়স ৫৫ বছর। তিনিও ডায়াবেটিসের রোগী। দুজনেরই শারীরিক অবস্থা ভালো।

ডিসেম্বরের শেষ দিন চীনের উহান শহরে প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। সেখানে তিন হাজারেরও বেশি প্রাণ কেড়ে নেয়ার পর প্রাণঘাতী ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে। অচেনা ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে সারা বিশ্বে ৩৮ হাজারের মতো মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ৮ লাখ ছুঁই ছুঁই।

চলতি মাসের ৮ তারিখে বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। সেদিন তিনজনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। পরে আরও ৪৫ জনের শরীরে করোনা পাওয়া যায়। সবশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় আরও দুইজন করোনায় আক্রান্ত হলেন। এ নিয়ে বাংলাদেশে মোট করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৫১ জনে।

Comments

comments