আজ : বৃহস্পতিবার, ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীর সুলতানপুরে স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কর করলেন স্থানীয় যুব সমাজ


প্রতিবেদক
জনতার মেইল.ডটকম

প্রকাশিত: ৪:৩৯ অপরাহ্ণ ,৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | আপডেট: ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ ,৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
রাজবাড়ীর সুলতানপুরে স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কর করলেন স্থানীয় যুব সমাজ

মোঃ আলমাস আলী ॥ রাজবাড়ী সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের শ্যাম নগর গ্রামে সমস্যার অন্ত নেই। চেয়ারম্যান যায়, চেয়ারম্যান আসে, কিন্তু শ্যামনগর গ্রামটিতে আজও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। অধ্যুষিত শ্যামনগর গ্রামে আজও অনেক রাস্তায় ইটের সোলিংতো দুরে থাক, মাটির ভালো রাস্তা পর্যন্ত নেই। বিগত দিনে এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে ছিলেন জালালউদ্দিন মোল্যা। বর্তমানে চেয়ারম্যান হিসেবে রয়েছেন আব্দুল রাজ্জাক মিয়া। শ্যামনগর গ্রামে ভোটার রয়েছে প্রায় ১ হাজার ২শ, স্কুল-মাদ্রাসাসহ অসংখ্যাক চাকুরী জীবি ছাড়াও  পাশেই রয়েছে সদরদি বাজার। শ্যামনগর আসাদ চেয়ারম্যানের বাড়ী হইতে গোলাম মোস্তফার বাড়ী পর্যন্ত প্রায় ৯০০শ‘ মিটার এলাকার রাস্তা একেবারেই চলাচলের অযোগ্য। ইউনিয়ন পরিষদ দীর্ঘদিনেও এখানে কোন অর্থবরাদ্দ না দেয়ায় চরম বঞ্চনার শিকার গ্রামটি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ইউনিয়নের ৫নং ওর্য়াডের শ্যামনগর গ্রামের রাস্তাঘাটের বেহাল দশা। উন্নয়নের কোন ছোঁয়া লাগেনি এই এলাকায়। পবিত্র ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহার সময়ে এলাকার বাহিরে থাকা চাকুরীজীবি, ব্যবসায়ীরা  শহর থেকে গ্রামের বাড়ী আসেন। কিন্তু এক কিলোমিটার সড়কের দুরাবস্থার জন্য নাড়ির টানে বাড়ি ফেরার পুরো আনন্দটাই মাটি হয়ে যায়।

স্থানীয় প্রশাসন ও জন-প্রতিনিধিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলেও তারা সময় লাগবে বলে অপেক্ষা করতে বলেছেন। কিন্ত  এলাকার মানুষের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে গত ২৪ শে জানুয়ারী থেকে নিজেরাই সড়কটি মেরামতে নেমে পড়েন। জেলার সদর  উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের শ্যামনগর আসাদ চেয়ারম্যানের বাড়ী হইতে গোলাম মোস্তফার বাড়ী পর্যন্ত সড়কের চিত্র এটি। সাবেক সেনা সদস্য নজরুল ইসলাম,সাহারিয়া সোহানের নেতৃত্বে ও স্থানীয় অগ্রসর যুব সংঘের সহযোগীতায় এ সড়কে মাটি ফেলে চলাচল উপযোগী করার কাজে হাত দেয়।

*বেহাল অবস্থা থাকা এ সড়ক নির্মাণকারী যুবকদের মাটি কাটার দৃশ্যটি নজরে আসায় শ্যামনগর গ্রাম থেকে ছবিটি তুলেছেন এ প্রতিবেদক আলমাস আলী।

Comments

comments