আজ : বুধবার, ১২ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মীর মাহফুজা মলি সভাপতি ও উত্তম সাঃ সম্পাদক পদে বিজয়ী; রাজবাড়ীর শিক্ষক কঃ সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন


প্রতিবেদক
জনতার মেইল.ডটকম

প্রকাশিত: ১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ ,৫ অক্টোবর, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৫৬ অপরাহ্ণ ,৫ অক্টোবর, ২০১৮
মীর মাহফুজা মলি সভাপতি ও উত্তম সাঃ সম্পাদক পদে বিজয়ী; রাজবাড়ীর শিক্ষক কঃ সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিনিধি।। শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতি রাজবাড়ী সদর উপজেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন। নির্বাচনে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে সভাপতি পদে বিজয়ী হয়েছেন মীর মাহফুজা খাতুন মলি।এবং একই প্যানেল থেকে সাধারণ সম্পাদক পদে উত্তম কুমার দাস বিজয়ী হয়েছেন।

৪ ঠা অক্টোবর-১৮ বৃহস্পতিবার রাজবাড়ী জেলা শহরের সেরে বাংলা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়।

নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে মোঃ সিরাজ উদ্দিন বিশ্বাস ও সহকারী নির্বাচন কমিশনার হিসেবে মোঃ রেজাউল করিম, অমিয় কুমার চক্রবর্তী, মোঃ আঃ রশিদ এবং মোঃ আক্কাছ আলী দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও সকাল থেকে থানা পুলিশ, ডিবি পুলিশসহ একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করেন।

নির্বাচনে ১৯টি পদের বিপরীতে ৩০জন প্রার্থী অংশগ্রহণ করেন। এরমধ্যে ৮জন প্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়। এছাড়া সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ১১টি পদে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ২২জন প্রার্থী।

নির্বাচনে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে সভাপতি পদে মীর মাহফুজা খাতুন মলি ৪০৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী গাজী আহসাব হাবীব ১৫১ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন।

সহ-সভাপতি পদে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে সালমা খানম ২৯৯ ভোট ও ছাদেক আলী মোল্যা ৩২১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাদের প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত প্যানেল থেকে মোঃ আব্দুর রাজ্জাক ২৫৯ ও মোঃ আব্দুর রউফ ২৩৯ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন।

সাধারণ সম্পাদক পদে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে উত্তম কুমার দাস ৩১৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের মোঃ জাহাঙ্গীর আলম শেখ ২২৮ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন।

সহ-সম্পাদক পদে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে মোঃ শাহজাহান মুন্সী ৩৭২ ভোট ও তপন কুমার পাল ২৬৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাদের প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের আবুল খায়ের ১৭১ ও মোঃ আনোয়ার হোসেন খান ১৭৩ ভোট পেয়েছেন।

কোষাধ্যক্ষ পদে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে হাফিজুর রহমান ৩০৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের সিরাজুল ইসলাম ২৩১ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে মোঃ আতাউল শেখ ৩৪৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের মোঃ আব্দুল হক ২০৭ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন।

দপ্তর সম্পাদক পদে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে মোঃ রফিকুল ইসলাম ৪২৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের মোঃ শাহজাহান আলী পেয়েছেন ১২৫ ভোট।

গ্রন্থাগারিক সম্পাদক পদে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে আলমগীর হোসেন ২৯৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোঃ জালাল মোল্যা পেয়েছেন ২৫৪ ভোট।

এছাড়াও কার্যকরী সদস্য পদে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল থেকে মোঃ সিদ্দিকুর রহমান ৩৮৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের মোঃ আব্দুল হাই পেয়েছেন ১৬৬ ভোট।

অপরদিকে, বিনাপ্রতিদ্বন্দিতায় ৮জনের মধ্যে ৭জন আওয়ামী সমর্থিত প্যানেলের ও ১জন বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের বলে জানিয়েছেন প্রিজাইডিং অফিসার মোঃ আঃ সাত্তার।

শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতির নির্বাচনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে মীর মাহফুজা খাতুন মলি’র নেতৃত্বে সকল নির্বাচিত নেতৃবৃন্দদের সঙ্গে নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭.টায় রাজবাড়ী চেম্বার অব ইন্ডাষ্ট্রির কার্যালয়ে গিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা ও মিষ্টি মুখ করান রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও রাজবাড়ী জেলা চেম্বার অফ কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি কাজী ইরাদত আলী-কে। এ সময় বিজয়ীদের ফুল দিয়ে বরণ করাসহ মিষ্টি মুখ করান জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও চেম্বার সভাপতি কাজী ইরাদত আলী।

এ সময় কাজী ইরাদত আলী বলেন, এ নির্বাচনে আমরা জয়ী হয়েছি। আমি মনে করি এটা আমাদের নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বিজয় এবং বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার বিজয়। এ বিজয় স্বাধীনতার পক্ষের সকল শক্তির বিজয়। এ নির্বাচনে আমাদের যে সকল নেতাকর্মী পরিশ্রম করেছেন আমি তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই। আগামী দিনে এই বাংলাদেশ এবং শিক্ষক ও কর্মচারীদের উন্নয়নের লক্ষ্যে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

সে সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুব মহিলা লীগ এবং শিক্ষক-কর্মচারী নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতি নির্বাচনে “মীর মাহফুজা খাতুন মলি” দোয়াত কলম মার্কায় সভাপতি পদপ্রার্থী ছিলেন। মীর মাহফুজা খাতুন মলি কাজী হেদায়েত হোসেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা এবং রাজবাড়ী জেলা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী।

Comments

comments